শবে বরাতের কয়টি অতিব গুরুত্বপূর্ণ আমল

699 0

শবে বরাতে যে কয়টি আমল অতিব গুরুত্বপূর্ণ তা উল্লেখ করা হলোঃ

১। যে ব্যক্তি এ রাত্রিতে মাগরিব ও ইশার নামাজের মাঝখানে কোন কথা না বলে ২১ বার নিচের দোয়াটা পড়ে তাকে আল্লাহ তায়ালা আগামী বৎসরের শবে বরাতের পূর্ব পর্যন্ত হারাম তো দূরের কথা সব ধরনের মাকরুহ কাজ থেকেও হেফাজতে রাখবেন আর তার যদি হায়াত শেষ হয়ে যায় তাহলে আল্লাহ তাকে পূনরায় হায়াত দিবেন। (উনওয়ানুল কালাম, মোল্লা মুহাম্মাদ বাক্বির ফেশারাকী, পৃ: নং ২১০)।

بسم الله الرحمن الرحيم. اللهم انك عليم حليم ذو اناة و لا طاقة لنا بحكمك يا الله يا الله يا الله، الامان الامان الامان من الطاعون و الوباء و موت الفجأة و سوء القضاء و شماتة الاعداء، ربنا اكشف عنّا العذاب انا موقنون برحمتك يا ارحم الراحمين

“বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম। আল্ল-হুম্মা ইন্নাকা আ’লিমুন হালিমুন যু-আনাতিন ওয়া লা-ত্বক্বাতা লানা বি-হুকমিকা ইয়া আল্ল-হু ইয়া আল্ল-হু ইয়া আল্ল-হু আল আমানু  আল আমানু আল আমানু মিনাত্ব ত্বউন ওয়াল ভিবাই ওয়া মাওতিল ফুজা ওয়া  সুইল ক্বাদ্বা ওয়া শিমাতাতিল আ’দা। রব্বানাকশিফ আন্নাল আযাব ইন্ন মুক্বিনুন, বি-রহমাতিকা ইয়া আরহামার র-হিমিন।”
২। যদি কেউ ১৫ই শা’বানের রাতে তিন বার সূরা ইয়াসিন তিলাওয়াত করে এবং প্রথমবার দীর্ঘায়ু লাভের নিয়তে, দ্বিতীয়বার সম্পদশালী হওয়ার নিয়তে এবং তৃতীয়বার বালা-মুসিবত দূর হওয়ার জন্যে তা পাঠ করে সে বৎসরে ঐ ব্যক্তি সকল ধরনের বিপদ-আপদ ও অভাব থেকে নিরাপদে থাকবে। আর প্রতিবার সূরা ইয়াসিন শেষ হবার পর বিনয়ের সাথে ক্রন্দন করে পড়বে:

بسم الله الرحمن الرحيم. اللهم يا ذَالمنِّ لا يُمَنُّ عليك يا ذالطَّولِ لا اله الا انت، انت ظهرُ اللاجين و جارُ المستجيرين و امان الخائفين اِن كُنتُ شقيّاً محروماً مُقْتِراً في الرزق، فامحُ في امِّ الكتاب شقاوتي و حرماني و اقتارِ رزقي و اثبتني عندك مرزوقاً موفِّقاً للخيراتِ، فانك قُلتَ في كتابكَ المنزل يمحواللهُ ما يشاءُ و عندهُ امُّ الكتابِ.

৩। তিনবার ইমাম হুসাইনকে সালাম দিবে:

السلام عليك يا اباعبدالله السلام عليك و رحمة الله و بركاته

“আস্ সালামু আ’লাইকা ইয়া আবা আ’বদিল্লাহ। আস্ সালামু আ’লাইকা ওয়া রহমাতুল্লহি ওয়া বারাকাতুহ্”।
৪। একশত বার পড়বে “আল্লহুম্মা আজ্জিল লি-ওয়ালি ইকাল ফারাজ”।

اللهم عجل لوليك الفرج

৫। একশত বার দরুদ পড়বে।
৬।  একশত বার সুবহানাল্লহ, একশত বার আল হামদু লিল্লাহ, একশত বার আল্ল-হু আকবার ও একশত বার লা-ইলাহা ইল্লাল্লহ যিকির করা।
৭।  মাগরিব ও ইশার নামাজের মাঝখানে দুই দুই রাকাত করে চার রাকাত নামাজ নফলের নিয়ত করে আদায় করা। প্রতি রাকাতে সূরা ফাতিহার পর এগার বার সূরা ইখলাস পড়া। চতুর্থ রাকাতের শেষে সালাম পাঠের পর দশবার “ইয়া রব্বিগ্ব ফির-লানা”, দশবার “ইয়া রব্বিরহামনা”, দশবার “ইয়া রব্বি তুব আ’লাইনা”, সূরা ইখলাস একুশ বার, “সুবহানাল্লাযি ইউহিল মাওতা ওয়া ইউমিতুল আহইয়া ওয়া হু-ওয়া আ’লা কুল্লি শাই-ইন ক্বাদির”

سُبْحانَ الَّذِي يُحْيِي الْمَوْتى‏ وَ يُمِيتُ الْأَحْياءَ وَ هُوَ عَلى‏ كُلِّ شَيْ‏ءٍ قَدِير

দশবার পড়বে। যে ব্যক্তি এই চার রাকাত নামাজ আদায় করবে আল্লাহ তায়ালা সকল দুনিয়াবী ও আখিরাতের সকল হাজত পূরণ করে দিবেন এবং ক্বিয়ামতে তার আমলনামা ডান হাতে দেয়া হবে। আর আগামী বৎসর পর্যন্ত আল্লাহর নিরাপদ আশ্রয়ে থাকবে।

Related Post

শুক্রবার দিনের বিশেষ আমল

Posted by - February 28, 2020 0
আবারো ঘুরে এলো, আরেকটি শুক্রবার। দয়াল ইমামের আত্মপ্রকাশের পবিত্র দিন। ইমামের বিরহে ভক্তদের বেদনাসিক্ত মনের কথা ব্যক্ত করার দিন।  ❤ একদিকে…

কয়েকটি ফলপ্রসূ বিশেষ আমল

Posted by - August 20, 2019 0
🔳বিশেষ🤲আমল ১ প্রাচুর্য ও আয় রোজগার বৃদ্ধির জন্যে নিচের আমলটি ফলপ্রসূঃ* দুই রাকাত নামাজ পড়বে। প্রতি রাকাতে সূরা ফাতিহার পর…

ঋণ আদায় ও পরিশোধের দোয়া

Posted by - January 27, 2020 0
✳ হযরত আল্লামা তাবারসী(রহঃ) বলেছেন, হযরত হুসাইন ইবনে খালিদ বলেনঃ *“আমি মানুষের কাছে তিন লক্ষ দেরহাম পাই এবং অনেকে মোট…

সন্তান লাভের তদবির

Posted by - September 17, 2019 0
✔”সূরা আলে ইমরান-এর ৩৭ নং আয়াত এবং ✔সূরা আল্ আন্বিয়া-এর ৮৯ নং আয়াত নামাজের সিজদাতে পাঠ করুন। 🤲আল্লাহ অতি দ্রুত…

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »