কুরআনের পরিচয়

221

💖 কুরআনের পরিচয় পত্র 💖
🔹নামঃ কুরআন, কুরআন একটি হিব্রু শব্দ,কু প্রধান নাম ফুরকান।
🔹কুরআনের উপাধীঃ মজিদ
🔹কুরআনের ভাষা: আরবী
🔹প্রথম অবতীর্ণের সময়কালঃ রমযান মাস, কদরের রাত
🔹প্রথম অবতরণের স্থান: মক্কা, হেরা গুহা
🔹প্রেরকঃ সর্বশক্তিমান আল্লাহ
🔹ওহীর ফেরেস্তাঃ হযরত জিব্রাইল (আঃ)
🔹গ্রহীতাঃ হযরত মোহাম্মদ (সা.)
🔹ওহীর সংখ্যা: ২৪০০০ বার
🔹নাযিলের সময়কাল: ২৩ বৎসর
🔹প্রথম আয়াতঃ
اقْرَأْ بِاسْمِ رَبِّكَ الَّذِي خَلَقَ
“পড়! তোমার প্রভুর নামে, যিনি সৃষ্টি করেছেন।” (সূরা আল-আলাক্ব, আয়াত নং ১, সূরা নং ৯৬)।
🔹প্রথম সূরাঃ আল-আলাক্ব
🔹শেষ সূরাঃ আল-নাসর
🔹শেষ আয়াতঃ
الْيَوْمَ أَكْمَلْتُ لَكُمْ دِينَكُمْ
“আজ আমি আমার দ্বীন পরিপূর্ণ করলাম।” (সূরা আল মায়িদা, আয়াত নং ৩, সূরা নং ৫)।
🔹পারার সংখ্যাঃ ৩০
🔹সূরার সংখ্যাঃ ১১৪
🔹সর্বশ্রেষ্ঠ আয়াতঃ আয়াতুল কুরসি
🔹দীর্ঘতম সূরাঃ সূরা বাক্বারা
🔹সবচেয়ে ছোট সূরাঃ সূরা কাওসার
🔹 সর্ব বৃহৎ আয়াতঃ সূরা আল-বাক্বারার ২৮২ নং আয়াত
🔹ক্ষুদ্রতম আয়াতঃ বিশতম সূরার তাহা শব্দ
🔹মক্কাতে অবতীর্ণ সূরার সংখ্যাঃ ৮২টি
🔹মদীনাতে অবতীর্ণ সূরার সংখ্যাঃ ২০টি
🔹মক্কা ও মদীনাতে অবতীর্ণ সূরার সংখ্যাঃ ১২টি
🔹কুরআনের অর্ধেক: সূরা আল কাহাফ
🔹কুরআনের মাতা: সূরা ফাতিহা
🔹কুরআনের অন্তর: সূরা ইয়াসিন
🔹কুরআনের বধুঃ সূরা আর-রহমান
🔹যে সূরাতে বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম দুইবার নাযিল হয়েছেঃ সূরা আন্ নামল
🔹যে সূরায় বিসমিল্লাহ নেইঃ সূরা আত্ তাওবা
🔹যে সূরার সব ক’টি আয়াতে আল্লাহর নাম রয়েছেঃ সূরা মুজাদিলা
🔹কোরআনের আয়াত সংখ্যাঃ ৬২৩৬
🔹শব্দ (কালেমা) সংখ্যাঃ ৭৭৪৩৯
🔹পুরো কুরআনে অক্ষরের সংখ্যাঃ ৩৩০৭৩৩
🔹কোরআন তিন ভাগে বিভক্তঃ আল্লাহর একত্ব (ওয়াহদানিয়্যাত), ক্বিসাস (কাহিনী) ও আহকাম
🔹যে সূরা তিনবার তিলাওয়াত করলে এক খতম কোরআন তিলাওয়াতের সাওয়াব হয়ঃ সূরা ইখলাস

🔴 গভীর চিন্তা করার মতঃ
কোরআন নাযিলের সময়, কোন অ্যাবাকাস ছিল না। ক্যালকুলেটর, কম্পিউটার, স্যাটেলাইট, টেলিস্কোপ, বিমান, সাবমেরিন, স্ক্যানার তো অনেক অনেক দূরের কথা।

🔴 কুরআন সম্পর্কে বিস্ময়কর তথ্য!
🔻নারী ও পুরুষের মধ্যে সমতা: আশ্চর্যজনক ঘটনা হল যে, কোরআনে পুরুষ শব্দটি ২৪ বার এসেছে এবং নারী শব্দটিও ২৪] বার এসেছে।

🔻কুরআনে সকল বিষয়ে সমতা দেখা যায়ঃ
🔹দুনিয়া ১১৫ / আখিরাত ১১৫
🔹ফেরেশতা ৮৮ / শয়তান ৮৮
🔹জীবন ১৪৫ / মৃত্যু ১৪৫
🔹লাভ ৫০/ ক্ষতি ৫০
🔹জাতি (মানুষ) ৫০/ নবী ৫০
🔹শয়তান ১১/ শয়তানের অনিষ্টতা থেকে আশ্রয় প্রাথনা ১১
🔹মুসিবত (দুঃখ) ৭৫ / শোকর ৭৫
🔹সদকা ৭৩ / সন্তুষ্টি ৭৩
🔹প্রতারিত ব্যক্তি (পথভ্রষ্ট) ১৭ / মৃত (মৃত ব্যক্তি) ১৭
🔹মুসলিমিন ৪০/ জিহাদ ৪০
🔹সোনা ৮/ আরামদায়ক জীবন ৮
🔹জাদু ৬০ / ফিতনা ৬০
🔹যাকাত ৩২/ বরকত ৩২
🔹যিহন (Mind) ৪৯ / আলো ৪৯
🔹ভাষা ২৫ / উপদেশ (বক্তৃতা, উপদেশ) ২৫
🔹আশা-আকাঙ্খা ৮/ ভয় ৮
🔹প্রকাশ্যে কথা বলা (বক্তৃতা) ১৮/ তাবলিগ ১৮
🔹কষ্ট ১১৪ / ধৈর্য ১১৪
🔹মুহাম্মাদ (সা.) ৪ / শরীয়ত, হযরত মুহাম্মাদ (সা.)-এর শিক্ষাসমূহ ৪।

🔻কুরআনের নিম্নোক্ত শব্দগুলোর পুনরাবৃত্তি দেখে নিন:
🔹৫ নামাজ, মাস ১২, দিন ৩৬৫
🔹সমুদ্র ৩২, ভূমি (স্থল ভাগ) ১৩, সমুদ্র + ভূমি =৩২+১৩=৪৫
🔹পৃথিবীতে সমুদ্র এবং স্থলভাগের শতাংশঃ
সমুদ্র = 111111%। 71 = 100 × 45/32, ভূমি = 28.888888889 = 100 × 13/45, সমুদ্র + ভূমি =100%
🔹মানব জ্ঞান সম্প্রতি প্রমাণ করেছে যে, পৃথিবী 111. 71% জল এবং 28.889% ভূমি দ্বারা আচ্ছাদিত!!!!!

🔹কোরআনের সূরা ক্বামার থেকে শেষ পর্যন্ত ১৩৮৯ টি আয়াত রয়েছে এবং হিজরী ১৩৮৯ সন ১৩৮৯ খ্রিস্টাব্দের সমান, যা মানুষের দ্বারা চাঁদ বিজয়ের তারিখ। এছাড়াও, সূরা ১৯ (মারিয়াম)-এর 57 নং আয়াতে হযরত ইদ্রিসের (আঃ) কাহিনী উল্লেখ করে, কোরআন বলেছেঃ
و رفعناه مکانا علیا
অর্থাৎ “আমরা তাকে উর্দ্ধ স্থানে উঠিয়ে নিয়েছি।”
দেখুন! 1957 সন হল মানুষের মহাকাশ জয়ের তারিখ। রাশিয়ান স্পুটনিক মহাকাশযানটি সেই বছরের ৪ অক্টোবর বায়ুমণ্ডলের বাইরে উৎক্ষেপণ করা হয়।

🔹সকল প্রাণীর মধ্যে পুরুষ ও স্ত্রী প্রাণীর ক্রোমোজোমের সংখ্যা সমান এবং মৌমাছিই একমাত্র প্রাণী যার ক্রোমোজোম গঠন অন্যান্য প্রাণী থেকে আলাদা। কারণ স্ত্রী মৌমাছির ১৬ জোড়া ক্রোমোজোম রয়েছে, যেখানে পুরুষ মৌমাছির ১৬টি একক ক্রোমোজোম রয়েছে এবং মজার বিষয় হচ্ছে, কোরআনের ১৬তম (ষোড়শ) সূরার নাম আন্ নাহল (মৌমাছি)।

🔹তা ছাড়াও, কোরানের কিছু জায়গায় অন্যান্য প্রাণীর নামের সাথে হামির (গাধা) শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে, কিন্তু কোরানের দুটি আয়াতে এই প্রাণীটির নাম পৃথকভাবে উল্লেখ করা হয়েছে।
ان انکر الاصوات لصوت الحمیر

و مثل الذین حملوا التورات ثم لم یحملوها کمثل الحمار یحمل اسفارا
“পদচারণায় মধ্যবর্তিতা অবলম্বন কর এবং কন্ঠস্বর নীচু কর। নিঃসন্দেহে গাধার কণ্ঠস্বরই সর্বাপেক্ষা অপ্রীতিকর।” (সূরা লুকমান, আয়াত নং ১৯, সূরা নং ৩১)।

“যাদেরকে তওরাত দেয়া হয়েছিল, অতঃপর তারা তার অনুসরণ করেনি, তাদের দৃষ্টান্ত সেই গাধা, যে পুস্তক বহন করে, যারা আল্লাহর আয়াতসমূহকে মিথ্যা বলে, তাদের দৃষ্টান্ত কত নিকৃষ্ট। আল্লাহ জালেম সম্প্রদায়কে পথ প্রদর্শন করেন না।” (সূরা জুমুআ’, আয়াত নং ৫, সূরা নং ৬২)।

এই প্রাণীটির ৩১ জোড়া ক্রোমোজোম রয়েছে। অর্থাৎ ৬২টি ক্রোমোজোম। আর এই দুটি সূরা কোরআনের ৩১ এবং ৬২ নং সূরা।

🔻একজন ডাচ অমুসলিম গবেষক সম্প্রতি আমস্টারডাম ইউনিভার্সিটিতে একটি গবেষণা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, আল্লাহ নামের সুন্দর শব্দটির যিকির করা এবং এটি পুনরাবৃত্তি করা, সেই সাথে এই শব্দের ধ্বনি মনকে প্রশান্ত করে এবং মানবদেহ থেকে মানসিক চাপ ও উদ্বেগ দূর করে দেয়। আর এই যিকির একজন মানুষের শ্বাস-প্রশ্বাসে এক প্রকার শৃংখলা ও ধারাবাহিকতা সৃষ্টি করে।
আল্লাহও তো কোরআনে বলেছেনঃ
الا بذکر الله تطمئن القلوب
অর্থাৎঃ
“জেনে রাখো, আল্লাহর যিকির দ্বারাই অন্তরসমূহ প্রশান্ত হয়।”
(সূরা আর্ রা’দ, আয়াত নং ২৮, সূরা নং ১৩)।

↯↻↯↻↯

Related Post

Leave a comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Translate »