ইয়াজিদের কিছু নিকৃষ্টতম পাপ

1169
কারবালার হত্যাকান্ডের মহানায়ক, ইসলাম ধ্বংসকারী, নবীর কলিজায় ছুরি চালনাকারী কুখ্যাত ইয়াজিদের কিছু নিকৃষ্টতম পাপ নিচে উল্লেখ করা হলোঃ
 
📖১) হাফেজ ইবনে কাসীর লিখেছেনঃ “ইয়াজিদ হযরত হুসাইন ও তাঁর সাথীদেরকে উবাইদুল্লাহ ইবনে জিয়াদের মাধ্যমে হত্যা করিয়েছিল।”
📚আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া, খণ্ড ৮, পৃঃ নং ২২২।
 
📖২) হযরত হাফিজ (৩ লক্ষ হাদিসের হাফিজ) ইবনে হাজার আসকালানী বলেনঃ
“ঐতিহাসিকগণ (কারবালার হত্যাকান্ডের পর) হাররার ঘটনার সত্যতার ব্যাপারে ঐক্যমত পোষণ করেছেন যে, সেই ঘটনায় ৮০জন সাহাবী শহীদ হয়েছিলেন। এ ঘটনার পর আর কোন বদরী সাহাবী জীবিত থাকেননি।”
📚ফাতহুল বারী, খণ্ড ৮, পৃঃ নং ৬৫১।
 
📖৩) “এ হাররার ঘটনাকালে ইয়াযিদ বাহিনী গণহারে মুসলমান নিধন, মদিনার সম্পদ লুন্ঠন এবং মদিনাবাসী নারীদের ধর্ষণ সহ সব কিছুই করেছিল।”
📚(আত তাবারী, খণ্ড ৫, পৃঃ নং ৪৮৪; আল কামিল, খণ্ড ৪, পৃঃ নং ১১২; আল বিদায়াহ ওয়ান নিহায়া, খণ্ড ৮, পৃঃ নং ২১৮)।
 
📖৪) “এ হাররার ঘটনাকালে মুসলমানের রক্তে পিচ্ছিল হয়ে গিয়েছিল মদীনার রাস্তাগুলো। মুসলমানের রক্ত গড়িয়ে গড়িয়ে  রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া আলেহী ওয়া সাল্লামের রওযা মোবারক পর্যন্ত পৌঁছেছিল। মসজিদে নববী রক্তে ভরে গিয়েছিল। ১০০০০ মুসলমানকে হত্যা করা হয়েছিল। ইয়াযিদী সেনাদের ধর্ষণের ফলে মদিনাতে ১০০০ জারজ সন্তান জন্ম নিয়েছিল।”
📚আত তাযকিরাহ; ইমাম ইবনুল জাওযী, পৃঃ নং ৬৩,১৬৩।
 
রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া আলেহী ওয়া সাল্লাম বলেছেনঃ
“হে আল্লাহ,
যে ব্যক্তি মদীনাবাসীর উপর অত্যাচার করে এবং তাদেরকে ভয় প্রদর্শন করে, তুমি তাকে ভয় প্রদর্শন কর। এমন ব্যক্তির উপর আল্লাহ, ফেরেশতা এবং সকল
মানুষের লা’নত বর্ষিত হোক।”
📚ম’জামুল আওসাত লিত তাবারানী, খণ্ড ২, পৃঃ নং ১২৫, হাদিস ১; আস সিলসিলাতুস সাহীহাহ লিল আলবানী, খণ্ড ১, পৃঃ নং ৬২০, খণ্ড ১, পৃঃ নং ৩৫১; আল মাজমা’ লিল হাইসামী, খণ্ড ৩, পৃঃ নং ৩০৬)।
আয়াত:
“যে ব্যাক্তি স্বেচ্ছায় কোন মু’মিনকে কতল করে সে জাহান্নামী।”
(সুরা নিসা, আয়াত নং ৯৩)।
তারপরেও কি একজন মুসলমান কুখ্যাত ইয়াযিদকে মুসলমান বলবে?
 
৫) ইয়াজিদ মসজিদে নববীতে ৩ দিন আযান দিতে দেয় নাই।
📚মিশকাত শরীফ, পৃঃ নং ৫৪৫, হযরত সাইদ ইবনে আজিব (রাঃ), বায়হাকী শরীফ।
 
৬) ইয়াজিদ মদীনা শরীফের হুরমত নষ্ট করেছিলঃ
📚মিশকাত শরীফ, পৃঃ নং ৪৬৫, হযরত ইবনে মুসাইয়্যেব (রাঃ) (বুখারী শরীফ )। মিশকাত শরীফ #২৫৩৯; #২৫৩৮; #২৫৩৯; হযরত সাইদ ইবনে আব্দুল আজিজ (রা:) (দারেমী শরীফ )
 
৭) ইবনে যিয়াদ ইমাম হোসাইন- এর কর্তিত মস্তক সামনে রেখে নাক মোবারকে ছুড়ি দিয়ে টোকা দিয়ে বেয়াদবির পরিচয় দিয়েছিলঃ
📚মিশকাত শরীফ, পৃঃ নং ৫৭২, হযরত আনাস (রাঃ) (বুখারী ও তিরমিযী শরীফ), (তিরমিযী শরীফ, খণ্ড ২, পৃঃ নং ২২২, হযরত উমার ইবনে উমাইর (রাঃ)।
 
৮) ইয়াজিদ সমকামী ছিলঃ
ইবনে কাসীর তার “আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া” কিতাবে ৮৬ হিজরী সনের ঘটনায় এবং যাহাবী তার “তারিখুল ইসলাম” কিতাবে লিখেছেন যে, একদা খলিফা আব্দুল মালিক ইবনে মারোয়ান খুৎবা দেয়, সেখানে সে বলেঃ
وَلَسْتُ بِالْخَلِيفَةِ الْمُسْتَضْعَفِ – يَعْنِي عُثْمَانَ – وَلا الْخَلِيفَةِ الْمُدَاهِنِ – يَعْنِي مُعَاوِيَةَ – وَلا الْخَلِيفَةِ الْمَأْبُونِ – يَعْنِي يَزِيدَ
 
“আমি উসমানের মত দুর্বল নই, মুয়াবিয়ার মত ধুর্ত নই, আর ইয়াজিদের মত সমকামী নই।”
📚আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া (বাংলা), ইঃ ফাঃ, খণ্ড ৯, পৃঃ নং ১১৫।🤔

Related Post

Leave a comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

একনজরে

"ইমামিয়া পাক দরবার শরীফ" হলো শুধুমাত্র আহলে বাইতের প্রেমিকদের মিলন কেন্দ্র। বাংলার যমিনে আহলে বাইতের আদর্শ প্রচার, প্রসার ও প্রতিষ্ঠা করাই হলো ইমামিয়া পাক দরবার শরীফের একমাত্র উদ্দেশ্য।

আমাদের সাথে থাকুন

Translate »