নবীর (সাঃ) স্ত্রীগণ

599 0

হযরত মুহাম্মাদ (সা.) পঁচিশ বৎসর বয়স পর্যন্ত অবিবাহিত ছিলেন এবং সেই বৎসরেই হযরত খাদিজা বিনতে খুওয়াইলাদ-কে বিয়ে করেন। পঞ্চান্ন বৎসর পর্যন্ত তাঁর একজন স্ত্রীর অধিক ছিল না। আল্লাহর হাবিব, হযরত খাদিজার ওফাতের পর বিভিন্ন সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক ও মানবিক কারণে আরো এগার জনকে বিয়ে করেন। তাদের নাম নিচে দেয়া হলো:

১। সুদা বিনতে যামআ’ ইবনে ক্বাইস ইবনে আব্দুশ শামস। তিনি নবীর চাচাত ভাই সাকরান ইবনে আমর-এর স্ত্রী ছিলেন। সাকরানের মৃত্যুর পর তিনি একাকী এবং অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছিলেন। আর সে কারণে তিনি অনেক কষ্টে দিন যাপন করছিলেন। তাই, আল্লাহর নবী তাকে বিয়ে করেন।

২। আয়েশা বিনতে আবি বাকর। তিনি একমাত্র মেয়ে ছিলেন যাকে নবীজী স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন।

৩। যাইনাব উম্মুল মাসাকিন। তিনি নবীর চাচাত ভাই উবাইদা ইবনে হারেস-এর স্ত্রী ছিলেন যিনি বদরের যুদ্ধে শাহাদাত বরণ করেন। এ সময়ে যাইনাবের বয়স ছিল সত্তুর বৎসর। নবীজী হিজরী তৃতীয় সনের রমজান মাসে তাকে বিয়ে করেন। কিন্তু দুই মাস পরেই যাইনাব মৃত্যুবরণ করেন।

৪। হাফসা বিনতে উমার ইবনে খাত্তাব। তিনি খুনাইস ইবনে হাযাফাহ-এর স্ত্রী ছিলেন যিনি বদরের যুদ্ধে আহত হয়ে কিছুদিন পর শাহাদাত বরণ করেন। এ কারণে আল্লাহর নবী বিধবা হাফসাকে নিজের সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ করেন।

৫। উম্মে সালামা বিনতে আবি উমাইয়্যা মাখযুমী। তার স্বামী আবু সালামা আব্দুল্লাহ ইবনে আব্দুল আসাদ মাখযুমী ওহুদের যুদ্ধে আহত হয়ে কিছুদিন পর মারা যান। রাসূল(সা.) তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে তিনি সন্তানদের কারণ দেখিয়ে বিয়েতে রাজী হননি। কিন্তু পরে তার সন্তানদের পরামর্শে রাসূলের সাথে বিয়েতে সম্মতি প্রকাশ করেন।

৬। যাইনাব বিনতে জাহিশ আল আসাদী। তিনি রাসূলের ফুফাতো বোন ছিলেন। তিনি তার প্রাক্তন স্বামী যাইদের কাছ থেকে তালাক প্রাপ্ত হয়ে রাসূলের সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।

৭। জুওয়াইরিয়া বিনতে হারিস ইবনে আবি যিরার। তার পিতা বানি মুসত্বালাক্ব গোত্রের নেতা ছিলেন। তার প্রাক্তন স্বামীর নাম মাসাফি’ ইবনে সাফওয়ান মুসত্বালাক্বী।]

৮। সাফিয়্যা বিনতে হুইয়াই ইবনে আখতাব। তিনি কিনানা ইবনে রাবিয় ইবনে আবিল হাক্বিক্ব-এর স্ত্রী ছিলেন। তার স্বামী খাইবারের যুদ্ধে মুসলমানদের হাতে নিহত হলে তিনি বন্দি হন। আল্লাহর নবী তাকে মুক্ত করে দিয়ে বিয়ে করেন। সাফিয়্যা বানি নাযির গোত্রের নেতার কণ্যা ছিলেন।

৯। উম্মে হাবিবা বিনতে আবি সুফইয়ান। তার স্বামী উবাইদুল্লাহ ইবনে জাহাশ আবিসিনিয়াতে মৃত্যুবরণ করলে আল্লাহর নবী তাকে বিয়ে করেন।

১০। মাইমুনাহ বিনতে হারেস ইবনে হুযন। তিনি তার স্বামী মাসউদ ইবনে আম ইবনে উমাইর আস সাক্বাফী-এর কাছ থেকে তালাকপ্রাপ্ত হন। অতঃপর তিনি আবু রাহেম ইবনে আব্দুল উয্যাকে বিয়ে করেন। তার দ্বিতীয় স্বামী মারা গেলে আল্লাহর রাসূলের সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।

১১। মারিয়া ক্বিবত্বিয়া। ইসকান্দারিয়া-র বাদশাহ মাকুমাস তাকে আল্লাহর রাসূলের জন্যে হাদিয়া হিসেবে প্রেরণ করেন।

Related Post

সর্বগু‌ণে গুণান্বিতা!!

Posted by - January 25, 2020 0
বয়স পাঁচ কি ছয়, হারা‌লেন জন্মদাত্রী মা কে! ক‌চি ম‌নে পু‌রো আকাশ ভে‌ঙ্গে পড়ার ম‌তো, সান্তনা প্রবোধ স্নেহ সবই পিতার…

হযরত ফাতিমাতুয্ যাহরা সালামুল্লাহি আলাইহা-র শাহাদাতের দিন তারিখ

Posted by - September 2, 2019 0
🖤হযরত ফাতিমাতুয্ যাহরা সালামুল্লাহি আলাইহা-র শাহাদাতের দিন তারিখ-এর ব্যাপারে তিনটি বর্ণনা বিভিন্ন ইতিহাসের কিতাবে বর্ণিত হয়েছেঃ🖤   🖊১। আল্লাহর হাবীব…

হযরত ফাতিমা আলাইহাস সালামের প্রতি যিয়ারতনামা

Posted by - January 27, 2020 0
হযরত ফাতিমা আলাইহাস সালামের প্রতি যিয়ারতনামাঃ السَّلاَمُ عَلَیْکِ یَا بِنْتَ أَفْضَلِ أَنْبِیَاءِ اللَّهِ وَ رُسُلِهِ وَ مَلاَئِکَتِهِ‏ আসসালামু আলাইকি ইয়া…

হযরত ফাতেমা (আ.)-এর শাহাদাত

Posted by - February 3, 2020 0
মহানবী (সা.) ইন্তেকালের পর বিভিন্ন রকম দুঃখ-কষ্ট হযরত ফাতেমার অন্তরে প্রচন্ড চাপ সৃষ্টি করেছিল এবং বিভিন্ন ঘটনাপ্রবাহ তাঁর জীবনটাকে তিক্ত…

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »